নবযুগ সম্পাদক

 

একের পর এক নাস্তিক, মুক্তমনা ব্লগার, লেখক, প্রকাশক, সংস্কৃতিকর্মী, মানবাধিকার কর্মী, সচেতন মানুষদের সিরিয়াল কিলিং করা হচ্ছে বাংলাদেশে। একদিকে ইসলামি জঙ্গিদের চাপাতির আক্রমণ অন্যদিকে সরকারের হত্যার ব্যাপারে উদাসীনতা, নিহতকে দায়ি করে মন্তব্য প্রদান, ধর্মানুভূতিতে আঘাতের অভিযোগে উল্টো আক্রান্তকে আরও বেশি আক্রান্ত করা আজ বাংলাদেশের প্রতিটি দিন। মুক্তমনা লেখক ‘নাস্তিকের ধর্মকথা‘ বাংলাদেশের নিহত, আক্রান্ত মুক্তমনা মানুষদের কথা, তাদের উপর হামলার কারণ, সরকারের দায়হীনতা নিয়ে তৈরি করেছিলেন তথ্যচিত্র “রেজর’স এজ”। তথ্যচিত্রটি ডয়চে ভেলের দ‍্য বব্স প্রতিযোগিতায় ‘সিটিজেন জার্নালিজম’ বা নাগরিক সাংবাদিকতা বিভাগে পুরস্কার জিতেছে।

 

ডয়েচে ভেলের ওয়েবসাইটে বলা হয়েছে-

“ডয়েচে ভেলের দ‍্য বব্স প্রতিযোগিতায় এ বছর চারটি ক‍্যাটাগরিতে জুরি অ‍্যাওয়ার্ড প্রদান করা হয়েছে৷ সোমবার বার্লিনে এক সংবাদ সম্মেলনে ববস’র জুরিমণ্ডলী চূড়ান্ত বিজয়ীদের নাম ঘোষণা করেন৷ প্রতিযোগিতার ‘সিটিজেন জার্নালিজম’ বা নাগরিক সাংবাদিকতা বিভাগে পুরস্কার জিতেছে ব্লগার হত‍্যা নিয়ে তৈরি তথ‍্যচিত্র ‘রেজর’স এজ’। বাংলাদেশে মুক্তমনাদের উপর ক্রমাগত হামলা নিয়ে তৈরি ভিডিও তথ‍্যচিত্রটি ইতোমধ‍্যে আন্তর্জাতিক অঙ্গনে সাড়া ফেলেছে”৷

 

অব্যাহত প্রাণনাশের হুমকীর কারণে বাধ্য হয়ে দেশ ছাড়া ‘নাস্তিকের ধর্মকথা’ পুরষ্কার লাভের পর ডয়েচে ভেলেকে তাঁর প্রতিক্রিয়া জানিয়েছেন এভাবে-

“ডকুমেন্টরিটি আমাদের কাছে, কেবলই একটি ডকুমেন্টরি বা শিল্প প্রচেষ্টা নয়, বরং অ্যাক্টিভিজমের একটি মাধ্যম৷ বর্তমানে বাংলাদেশে যেভাবে একের পর এক মুক্তমনা, নাস্তিক, সেক্যুলার লেখক, ব্লগার, প্রকাশক হত্যার মহোৎসব শুরু হয়েছে, সেই প্রেক্ষাপটকে আমরা তুলে ধরতে চেয়েছি এর মাধ্যমে”

 

 

‘রেজর’স এজ’ নিয়ে মুক্তমনা ব্লগে প্রকাশিত নাস্তিকের ধর্মকথার লেখাটি এখানে ক্লিক করে পড়তে পারেন।

 

ইউটিউবে ডকুমেন্টরির অনলাইন সংস্করণটি দেখতে এখানে ক্লিক করুন।

 

নবযুগ পরিবারের পক্ষ থেকে ডয়েচে ভেলের নাগরিক সাংবাদিকতা বিভাগে জুরি পুরস্কার অর্জন করায় নাস্তিকের ধর্মকথাকে অভিনন্দন।

 

 

 

0 Shares