জাবালি

প১

Dera Sacha Sauda chief Gurmeet Ram Rahim Singh (Photo: Internet)

 

রাম রহিমের চক্করে মরে কেলে হরি আর তিনকড়ি ভারতীয়রা। রাজনৈতিক নেতারা সেই মৃতের জ্বালানিতে তাদের রুটি বানায়।

আমরা সবাই এতক্ষণে এই খবর জেনে গেছি। তারপর মনে হলো, এর উপর একটু বলা দরকার। অন্তত নিজের কাছে পরিষ্কার থাকা জরুরী। না হলে তো সুশীলের সাথে তফাৎ থাকে না। মন্তব্যে কোনো বিজাতীয় উল্লাস দেখাবেন না, তাহলে একই কায়দায় উত্তর দেবো!

আজ অনেক আওলাদে মাও এর উল্লাস হয়তো অনেকের চোখে পড়েছে। উৎকট উল্লাস প্রকাশ এর নানান রূপ দেখবো সোশ্যাল মিডিয়ার আর সুশীলের, স্বাভাবিক, তারা সুযোগ বুঝে সামনে আসেন। তাদের আবার অবজ্ঞা করে প্রতিবাদ জানাই, হতাশা ব্যক্ত করি এই ধর্মের বাঁশিওয়ালার পেছনে চলা জনতার পালকে। কড়া হাতে মোকাবিলা করে এই তাণ্ডব বন্ধ করুন প্রশাসন। আকুল আবেদন জানাচ্ছি!

আসুন এই প্রাণী মানে ওই রাম রহিম নামের লোকটি সম্পর্কে একটু জানার চেষ্টা করি।

 

প

(Photo: Internet)

 

এই গুরমিত রাম রহিম সিং একজন অতীব গুরুত্বপূর্ণ ধর্মীয় নেতা। ইন্ডিয়ান এক্সপ্রেস এর মতে এই লোকটি ২০১৫ সালে ছিল ৯৬ তম ‘সবচেয়ে শক্তিশালী ‘ মানুষ , ১০০ জন ভারতীয়র মধ্যে। ১৯৯০ থেকে ডেরা সাচ্চা সৌদা বলে একটি ধর্মীয় গোষ্ঠীর প্রধান হিসেবে যুক্ত। ৫ কোটির  ওপর ভক্ত আছে তার।

রাজস্থানের এক ভূস্বামীর সন্তান এই লোকটি নিজেকে একজন সন্ত ঘোষণা করে। বিবাহিত, তিনটি সন্তানের বাবা। দুই মেয়ে এবং এক ছেলে। ছেলের বিয়ে দিয়েছেন পাঞ্জাব কংগ্রেসের এক উঁচু শ্রেণীর নেতার মেয়ের সাথে। এক মেয়ে ফিল্মের সাথে যুক্ত। এর ভক্তের অধিকাংশ হলেন দলিত শ্রেণীর এবং এই লোকটি তার ধর্মীয় প্রতিষ্ঠানকে দিয়ে এবং নিজে নিয়মিত রাজনৈতিক দলের কাকে ভোট দিতে হবে ইত্যাদি কর্মকাণ্ডে সক্রিয় অংশ নিতো।

আসুন দেখি, এই লোকটি কীভাবে রাজনৈতিক দলগুলোকে ব্যবহার করেছে বিভিন্ন সময়ে:

১.  মূলত রাজনৈতিক সমর্থন দিচ্ছিল কংগ্রেসকে। এর ফলে বিবিধ সুবিধা ছাড়া জেড ক্যাটাগরির নিরাপত্তা পেয়ে যায় এই লোকটি।

২.  ভারত ছাড়া ক্যানাডা , মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রে , দুবাইয়ে , ব্রিটেনে এবং অস্ট্রেলিয়াতে তার আশ্রম আছে, ভক্তের সংখ্যা ৬ কোটি।

৩.  ২০০২ এর এই যৌন কেলেঙ্কারি ছাড়া ও দুটো খুন যার একটি ওই সাংবাদিক এবং আর তার আর এক ভক্ত রণজিৎ সিং এক খুনে দায়ী হিসেবে মামলা চলছে।

৪.  ২০০৭ এ শিখ ধর্মগুরু গোবিন্দ সিংহ এর নকল করে শিখ সম্প্রদায়ের রোষে পরে।

৫.  ২০১০ এ নিজের গাড়ির চালক ফকির চাঁদ এর খুনের জন্য অভিযোগে মামলা চলছে।

৬.  ২০১৬ তে আবার ধর্মীয় গণ্ডগোলের শুরু করে নিজেকে বিষ্ণুর অংশ দাবি করে। এই সময়ে ভোল পাল্টে বিজেপির দিকে ঝোল টানতে শুরু করে, কংগ্রেসের থেকে মুখ ফিরিয়ে।

৭.  তিনটি সিনেমা করেছে নিজেই হিরো সেজে।

 

২

Fimi Hero (Photo: Internet)

 

At the Age of 23, he became the Third Chief of Dera Sacha Sauda (DSS) group

 

নানাবিধ সম্পত্তি ছাড়া নিজের ১০০০ একর একটি সম্পত্তিতে পুরো একটি টাউনশিপ ছাড়া আছে সিনেমা হল, খেলার জায়গা, শিক্ষা প্রতিষ্ঠান ইত্যাদি।

আরও পড়ুন >>> ভারতীয় ধর্মগুরু যৌন নিপীড়ন মামলায় দোষী সাব্যস্ত; রাজ্য জুড়ে ব্যাপক নিরাপত্তা

মনে রাখবেন, এই লোকটি কোনোদিন সরাসরি কোনো দলের হয়ে কোনো সমাবেশে থাকে না তবে সময়ে সময়ে রাজনৈতিক দলগুলোর হয়ে ফতোয়া দিয়ে থাকে নিজের ভক্তদের জন্য।

এই মহান প্রাণীর এই ধর্ষণ ইস্যু সামনে আনার জন্য ছত্রপতি নামের সাংবাদিক এর কৃতিত্ব ছিল তাকে গুলি করে খুন করা হয়েছে ১৫ বছর আগে। এই মামলার রায় ও একই সিবিআই আদালতে চলছে। আজ ৭ বছরের জেল এর রায় এর কারণে এই হ্যামিলিনের বাঁশিওয়ালার ভক্তকুলের তাণ্ডব এবং পুলিশের পাল্টা মারে প্রাণ হারিয়েছে এ পর্যন্ত ৩১ জন।

এই প্রাণীটি (রামরহিম ) প্রচারের আলোতে আসে যখন ওই সাংবাদিক তিন পাতার বেনামি চিঠি ছাপায় স্থানীয় সংবাদপত্র পুরা সাচ এ। উলেখ্য ২০০২ সালে এই খবর প্রকাশ পায় , এ কয়েক মাস এর মধ্যেই ওই সাংবাদিককে পয়েন্ট ব্ল্যাঙ্ক রেঞ্জে গুলি করে খুন করা হয়।

০০০
 Journalist Ram Chander Chhatrapati (Photo © Living Media India Limited)

ওই বেনামি চিঠিতে দুজন দূর্ভাগা মহিলা তাদের এই ধর্ষণের অভিযোগ জানায় তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী, হরিয়ানা এবং পাঞ্জাব এর প্রধান বিচারপতি আর বাকি প্রশাসনিক প্রধানদের কাছে। এই মহিলারা ওই ধর্মগুরু প্রাণীটির ভক্ত বলেই জানা যায়। এরপর তৎকালীন হরিয়ানা এবং পাঞ্জাবের বিচারপতি এর প্রশাসনিক তদন্ত করতে নির্দেশ দেন। অতঃপর এই আদালতের নির্দেশে এই তদন্ত শুরু করে সিবিআই।

আজ এতোদিন পরে, যখন পূর্বনির্ধারিত হিসেবেই ওই রায় জানানোর দিন ছিল, সেইসময়ে এই তাণ্ডব ঠেকানোর ক্ষেত্রে প্রশাসন ব্যর্থ হলো। শোচনীয় ব্যর্থ হিসেবে কোনো অজুহাত যথেষ্ট না।

এখনো সময় আছে, দয়া করে ধর্ম নিয়ে একটু নজর দিন। এই প্রাণীটির কোনো বিশেষ সুবিধা জেলে না দিয়ে দৃষ্টান্ত স্থাপন করুন সরকার বাহাদুর।  কোনোদিকের প্রাণীকেই এর সুযোগ নিতে দেবেন না। ধর্মের সকল প্রতিষ্ঠানকে নজরদারির আওতায় আনুন। আমরা নিজেদের কোনো ধর্মীয় তাণ্ডবের ভূমি হিসেবে দেখতে চাই না!

কী করলে কী হতো ওই ভেবে আর ওই প্রাণগুলো ফিরে পাবো না, তবে এখন কী করলে এই কু’কাজ আর না হয় ওটা ভাবুন। কোনো ধর্মীয় নেতাকে রাজনীতির অঙ্গনে ঢুকতে দেবেন না! দিলে কী হয় তার উদাহরণ আমাদের আশেপাশের দেশগুলোতে আছে।

ইতোমধ্যেই এই হতাশার মাঝে আলোর ঝলক দেখছি। হাইকোর্ট এই প্রাণীটির সম্পত্তির হিসেবে নিতে বলেছে, যাতে এই ক্ষয়ক্ষতির কিছুটা হলেও ক্ষতিপূরণ আদায় করা যায় তার জন্য। আমরা আমাদের বিচার ব্যবস্থার ওপর সম্পূর্ণ আস্থাশীল!

নির্দিষ্ট কারণে কোনো নাশকতার ছবি দেওয়া হয় নি। দিতে ইচ্ছুকও নই।

আবার বলছি , কাণ্ডারি হুশিয়ার!

 

সূত্র :

১) Shocking Facts About Rockstar Baba aka Gurmeet Ram Rahim Singh Insan

২) Journalist who exposed Gurmeet Ram Rahim rape case was shot dead outside his house

৩) Pay for damage caused from violence: HC seeks list of Ram Rahim Dera’s assets

 

জাবালি এর ব্লগ   ১৮০ বার পঠিত