শান্তা মারিয়া

 

 

 

মেয়েটির নাম অপর্ণা

 

ওরে মেয়ে, তুই বাড়ি আয় মা

কতদিন যে দেখি না রে

ওই দুটি চোখ, মধুর হাসি

দুয়ার জুড়ে ছুটোছুটি।

নতুন চালের ধান উঠেছে

ক্ষীরের সুবাস, নাড়ুর মোয়া

তুই যে বড় ভালোবাসিস।

দোলায় চেপে, ঘোড়ায় চড়ে

যেমন খুশি আয় রে মা তুই নিজের ঘরে

ছেলে মেয়ে চারপাশে তোর

আপনভোলা স্বামীটিরে

নিয়ে আসিস বাবার ঘরে

মায়ের কোলে।

ও মেয়ে তুই কোন পাহাড়ে

কোন অবেলায় স্বামীর ঘরে?

তুই নাকি মা আছিস পড়ে

পথের ধূলায়, অবহেলায়

শকুন নখর ছিঁড়ছে তোকে?

রাতের শিয়াল, হায়না, গৃধর

ঘিরছে তোকে ধর্ষণে বা নির্যাতনে।

ও মেয়ে তুই ওঠরে জেগে

দশ হাতে তোর শস্ত্র ধরে

নিকেষ করে জানোয়ারে

পায়ের নিচে দুমড়ে দে না

হতচ্ছাড়া সমাজটারে।

তারপরে মা আয়রে ঘরে

শাড়ি পরে, ঝলক তুলে অলংকারে।