Author: কাকন রেজা

আমাদের কথিত বুদ্ধিজীবী ও সমালোচকগণ

একজন কবি, লেখক, রাজনীতি বিশারদ ফেসবুকারকে চিনি, দেখি। উনি সবার সমালোচনা করেন। কেউই তার কাছে ভালো না। সম্ভবত হঠাৎ তার নিজের নামটা বলে, তিনি কেমন জিজ্ঞাসা করা হলে, বোঝার আগেই বলে দিবেন ‘মহা বদ’। এমন ভদ্রলোকের সমালোচনার ধারাতেও একটা নরম জায়গা রয়েছে। সেই জায়গা থেকে যাদের সমালোচনা করা হয়, সেখানে তাদের ভালোচনাও থাকে। মানে, তাদের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

রম্যতা, ব্যক্তি থেকে রাষ্ট্র, পুরো জীবনক্রমই রম্যের সমষ্টি

যারা সত্যিকার অর্থেই লেখক, তারা চরম দুঃখের সময়ও স্যাটায়ার করতে পারেন। অনেকে বলতে পারেন স্যাটায়ারতো রম্য। না, স্যাটায়র রম্য নয়, চরম কষ্টের আনন্দময় অভিব্যক্তি হলো স্যাটায়ার। আনন্দময় কথাটির উপর আপনাদের চিন্তা আটকে যাবার কথা। কষ্টের আনন্দময় অভিব্যক্তি হয় কী করে। বলি, কষ্টেওতো মানুষ হাসে, নাকি। স্যাটায়ার তেমনি কষ্টের হাসি। কলেজে ভর্তি হয়েছি কেবল। সমাজ বদলের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

আন্দোলনের চেয়ে ক্রিকেট টুর্নামেন্ট বেহতর

গণমাধ্যমের হলো কি! একটি কাগজ শিরোনাম করেছে, ‘আন্দোলনে উত্তাল ঢাবি, ব্যাট হাতে মাঠে ভিসি’। এরা তো দেখি খেলাধুলাও করতে দেবে না। সম্পাদক সাহেবরা কি দেখেন না? আরে খেলাধুলা না করলে তরুণেরা বিপথগামী হবে, এমনসব আন্দোলন-টান্দোলন করবে। রাস্তা অবরোধ করে মানুষকে কষ্ট দেবে, গাড়িঘোড়া ভাঙবে, দেশের সম্পদ নষ্ট হবে। তারচেয়ে খেলাধুলা ভালো না। শরীর ও মন … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

নারীবাদীতা আমাদের দেশে–

সরকারি চাকরি করেন। ভালো পদে। আয়ও ভালো। তাই স্বামীর উপর নির্ভর করতে হয় না। এ পর্যন্ত ঠিকই আছে। কিন্তু তারপর। নিজে টাকা আয় করেন, স্বামীরটাও ছাড়েন না। স্বামীর আয়ের হিসাব তাকে দিতে হয়, কড়াগন্ডায় ব্যয়ের হিসাবও। অথচ তার আয়-ব্যয়ের হিসাব চাইবার সাহস স্বামী বেচারা ধারণ করেন না। কেনো করেন না, সোজা কথায় চিল্লাচিল্লির ভয়ে। শিক্ষিতা। … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

মৃত্যু উপত্যকায় ফাগুন চলে যাওয়ার সাত মাস

এমন হয় কেনো! বাস থেকে একটা পলিথিন পড়লো পায়ের উপর। পলিথিন ভরা বমি। ঘেন্না হওয়ার কথা অথচ হলাম আশ্চর্য। আমার সাথেই কেনো! রাস্তায়তো আরো লোক ছিলো, তাদের উপরতো পড়লো না! এর একটা ব্যাখ্যা হতে পারে, যে ব্যাখ্যায় দোষটা শেষমেশ আমারই হওয়ার কথা। অন্যমনস্ক ছিলাম, অন্যরা ছিলো মনস্ক। ওই যে বিজ্ঞানমনস্কের মতন মনস্ক আর কী। না … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

পেঁয়াজের সাতকাহন

পেঁয়াজ নিয়েও হাইকোর্টকে কথা বলতে হচ্ছে। অতএব আমরা আর পিছিয়ে নেই। খোদ অ্যামেরিকার সমপর্যায়ে। বলতে পারেন কিছুটা এগিয়ে। কিভাবে বলি, অ্যামেরিকাতেও একবার পেঁয়াজের দাম বেড়ে গিয়েছিলো। আর সে কারণে পেঁয়াজ বিষয়ে বিশেষ একটি আইন করতে হয়েছিলো তাদের। আমাদের কোর্ট বলেছেন, এক সপ্তাহের মধ্যে পেঁয়াজের দাম না কমলে, তারা হস্তক্ষেপ করবেন। তবে এগিয়ে থাকাটা হলো দামের … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ব্যক্তিগত দুঃখ-কথা

আমার ব্যক্তিগত সুখ-দুঃখ বিষয়ে সরাসরি কোনো ‘স্যাটাস’ সামাজিকমাধ্যমে নেই। আমার ছেলের মৃত্যু, এরচেয়ে বড় কোনো বেদনা পৃথিবীতে আর নেই। এ বেদনাকে অতিক্রম করার শক্তি কোন যাতনারই নেই। আমার বাবা মারা গেছেন, চলে গেছেন মা’ও। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো ব্যক্তিগত ‘স্ট্যাটাস’ আমার ছিলো না। যা রয়েছে তা সবই গণমাধ্যমে প্রকাশিত রচনার শেয়ার। কেনো নেই, এ ব্যাখ্যাটা … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ফাগুন হত্যার পাঁচ মাস, লাশের মিছিল বাড়ছে

আবরার ফাহাদ যেদিন নিহত হয়, সেদিন মনে হয়েছিল আমার ফাগুন আবার নিহত হলো। এখন প্রতিটি হত্যাই আমাকে আমার ফাগুনের কথা মনে করিয়ে দেয়। আমি বুঝি সন্তান নিহত হবার যন্ত্রণা, বাবা-মা’দের বুকের হুতাশন। তাই প্রতিটা হত্যা, প্রতিটি মৃত্যুই আমাকে যন্তণাকাতর করে, করে দিশেহারা, একই সাথে প্রতিবাদীও। আজ আমার ছেলে সাংবাদিক ইহসান ইবনে রেজা তথা ফাগুন রেজা … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

সম্প্রীতি ও সাম্প্রদায়িকতা এবং দুর্জন পন্ডিত

এক. আমাদের দেশ আবহমান কাল হতে সম্প্রীতির দেশ। আমরা যখন ছোট, তখন আমাদের বন্ধুদের অনেকেই ছিলেন হিন্দু সম্প্রদায়ের, এখনো আছেন। এজন্যে বাড়িতে কখনো শুনতে হয়নি, ‘হিন্দু ছেলেদের সাথে মিশিস কেন’, এমন কোন প্রশ্ন। কখনো চিন্তাও করিনি আমার বন্ধু অন্য ধর্মের মানুষ। সম্পর্কের সাথে ধর্ম বিষয়ে কখনো মিলিয়ে দেখার পরিবেশ সৃষ্টি হয়নি। কিন্তু আশি’র দশকের শেষভাগে … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

ফাগুন চলে যাবার চার মাস, শোক আর প্রত্যয়ের দিন

  এক. আমাদের প্রতিটা দিন যায় কর গুনে। আমাদের প্রতিটা নিঃশ্বাস পরিণত হয় দীর্ঘশ্বাসে। সন্তানহারা পিতা-মাতার এমনটাই হওয়ার কথা। ইহসান ইবনে রেজা ফাগুন, ফাগুন রেজা, সন্তান হিসাবে আমাদের ছিলো কিন্তু সম্পদ হিসাবে ছিলো দেশের। ওর মতো মেধাবি ও সৎ একজন গণমাধ্যমকর্মীর চলে যাওয়াটা আমাদের চেয়ে দেশের জন্য বেশি ক্ষতিকর। ওকে রক্ষা করতে না পারার ব্যর্থতা … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]