Author: মাসকাওয়াথ আহসান

স্যার ডাক শোনার ‘আকুতি’

পৃথিবীতে দক্ষিণ এশিয়া নামক একটি গ্রাম আছে। এটাকে ১৯৪৭ সালের আগে ভারতবর্ষ বলা হতো। ব্রিটিশ বানরেরা এই গ্রামে হানা দেয়ার আগে এটা এক প্রত্ননগর ছিল। এখানে রাস্তায় ভিক্ষুক বা স্যার কিছুই ছিল না। গোলা ভরা ধান ছিল, পুকুর ভরা মাছ ছিল, জীবনের ঔদার্য ছিল, সভ্যতার আলো ছিল। ব্রিটিশ টাউটেরা এখানে আসার পর স্থাপিত হলো ভিক্ষুক … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

জন্মান্তরের ডানা

একটি মৃতদেহ পড়ে আছে নিথর; মাথার কাছে জমাট বাধা রক্ত। আশেপাশের লোকজন দুঃখ করছে। – আহারে বড় ভালো লোক ছিলো। একজন খেঁকিয়ে ওঠে, একজন খেরেস্তানের মৃত্যুতে এতো কান্দাকাটির কিছু নাই। এর বাপে মুসলমান ছেলো। চার্চের টেকাটুকা নিয়ে সে খেরেস্তান কাফের হইছে। কিছু লোক প্রভাবিত হয়; মৃতদেহের ধর্ম খতিয়ে দেখা খতিবের বয়ানে। কিছু লোক তবুও মন … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

এ কোন পূর্ণিমা, অমাবশ্যার চেয়ে অন্ধকার

বাউফলে আজকাল সাঁঝ নামলেই বখতিয়ারের ঘোড়া দাপিয়ে ঘোরে কয়েকজন ধর্ম ও দেশপ্রেমকারী। ফেনসিডিল খেয়ে নেশায় চুর সান্ধ্যরাতের অশ্বারোহীরা তাদের পার্টি অফিসে বসে সানি লিউনের আইটেম নাম্বার দেখে ইফতারের একটু পরেই। আজকাল রোজা ভাঙ্গতে বেবিডল দেখতে হয় তাদের। বাউফলে সবার নজর অনিন্দিতা নামে এক তরুণীর দিকে। পার্টি অফিসের এক রসিক ভাঁড় তাদের বড় ভাইকে বলে, –হেইয়ে … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]

মক্কায় ভোগবাদ বনাম সাম্যবাদের লড়াই

মক্কার সহিংস ব্যবসায়ী সিন্ডিকেটটি মুহাম্মদের ইসলাম ও সাম্যবাদের দর্শন প্রচার বন্ধে মরিয়া হয়ে ওঠে। কাবাগৃহে লাত-মানাত-উযযা নামের তিনটি মূর্তি সাজিয়ে রেখে বছরের পর বছর তীর্থব্যবসা চালিয়ে আসছিলো তারা। এই মূর্তি তিনটিকে তারা ব্যবহার করেছে ব্যবসার বিনিয়োগ হিসেবে। ব্যক্তিগত অর্থ-সম্পদ অর্জনের জন্য এই দুষ্টচক্রটি তীর্থ যাত্রীদের একরকম লুন্ঠন করতো প্রতিবছর। আর তারা চেয়েছিলো নিজেরাই সম্পদের পাহাড় … [ সম্পূর্ণ পোস্ট পড়ুন ]